এখানেই বিনোদন

অবশেষে রাফসানের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন জেফার


বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় উপস্থাপক রাফসান সাবাব গত বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) ফেসবুক অ্যাকাউন্টে নিজের বিবাহবিচ্ছেদের খবর দেন।

এক স্ট্যাটাসে তিনি জানান, ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আমাকে বলতে হচ্ছে যে, এশার সঙ্গে আমার সম্পর্কের ইতি। বিবাহবিচ্ছেদ ঘোষণার পর রীতিমতো তোপের মুখে পড়েছেন রাফসান। নেটমাধ্যমে তাকে নিয়ে চলছে তুমুল নেতিবাচক চর্চা। প্রতারক বলে কটাক্ষ করছেন অনেকে।

এই উপস্থাপকের সংসার ভাঙার পর থেকেই আলোচনায় উঠে এসেছে সংগীতশিল্পী জেফার রহমানের নাম। সামাজিকমাধ্যমে দাবি করা হচ্ছে, জেফারের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন রাফসান। যার কারণেই বিবাহবিচ্ছেদের পথে হেঁটেছেন তিনি।

এই গুঞ্জন আরও বাড়িয়ে দেয় রাফসানের স্ত্রী এশার বক্তব্যে। বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে তিনি দাবি করেন, আমার অনুমতি ছাড়া এমনকি ডিভোর্স লেটারে আমার স্বাক্ষর ছাড়াই রাফসান বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছে।

জেফারের সঙ্গে রাফসানের সম্পর্ক নিয়ে যখন আলোচনা তুঙ্গে তখনই সংবাদমাধ্যমের কাছে মুখ খুলেছেন এই সংগীতশিল্পী। যেখানে জেফার দাবি করেছেন, রাফসানের সঙ্গে সম্পর্কটা শুধুই বন্ধুত্বের। আমি সাধারণত এসব বিষয় এড়িয়ে চলার চেষ্টা করি। কিন্তু রাফসানকে নিয়ে আলোচনাটা অনেক দূর গড়িয়েছে। সে আমার একজন বন্ধু। এমন বন্ধু যেমনটা ইন্ডাস্ট্রিতে অনেকেই আছে।

জেফার আরও বলেন, আমরা একসঙ্গে শো করেছি। বিভিন্ন প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করেছি, ঘুরেছি। কিন্তু সেটা কেবলই দুজনে মিলে নয়। আমাদের আরও বন্ধুরাও সঙ্গে ছিল।

এই সংগীতশিল্পী আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যা পড়বেন, তাই বিশ্বাস করবেন না। কেউ একজন এসে অভিযোগ তুলল কোনো প্রমাণ ছাড়াই, এর মানে এই নয় যে সেটা বিশ্বাস করতে হবে।

প্রসঙ্গত, কলেজে পড়াকালীন সময় থেকেই উপস্থাপনার সঙ্গে জড়িত রাফসান সাবাব। আইবিএর শেষ বর্ষে থাকা অবস্থায় টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিকের সঙ্গে তার কাজের সুযোগ হয়। আয়মান সাদিকের সহযোগিতায় ২০১৭ সালে যাত্রা শুরু করেন ‘টেন মিনিটস স্কুল শো’তে। কনটেন্ট ক্রিয়েটর হিসেবে পরিচিতি পেতে শুরু করেন। এরপরে রাফসান ‘হ্যাশ ট্যাগ’ নামের আরেকটি শো করেন। সেটিও দর্শকপ্রিয় হয়। সবশেষে তিনি ইউটিউব শো ‘হোয়াট অ্যা শো’ শুরু করেন। এরপর আর তাকে পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। শোটি এখন দেশের সর্বাধিক জনপ্রিয় ইউটিউব শো।

এদিকে তরুণ প্রজন্মের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও ইউটিউবার জেফার। তিনিই বাংলাদেশের প্রথম ইউটিউবভিত্তিক মিউজিশিয়ান। ২০১০ সাল থেকে বিখ্যাত সব ইংরেজি গান কাভার করে শোরগোল ফেলে দেওয়া জেফার ধীরে ধীরে পৌঁছে যান জনপ্রিয়তার শিখরে। সম্প্রতি তিনি অভিনয়ে নাম লিখিয়েছেন।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

70,000FansLike
280,000SubscribersSubscribe

Latest Articles

Translate »